হাদীস (পর্ব ১৪)

হাদীস
হাদীস

পরম করুনাময় আল্লাহ্ এর নামে শুরু করলাম

 

আসসালামু আলাকুম, কেমন আছেন সবাই? আশা করি ভালই আছেন, আমি ও আমরা আপনাদের দোয়ায় এবং আল্লাহ্র অশেষ রহমতে অনেক ভাল আছি।

পর্ব এক

পর্ব ০২

পর্ব ০৩

পর্ব ০৪

পর্ব ০৫

পর্ব ০৬

পর্ব ০৭

পর্ব ০৮

পর্ব ০৯

পর্ব ১০

পর্ব-১১

পর্ব-১২

পর্ব-১৩

হাদীসঃ হযরত মোহাম্মদ (সঃ) বলিয়াছেন-মা বাপের যেমন হক আছে সন্তানের উপর, তদ্রূপ সন্তানেরও হক আছেমা বাপের উপর।

 

হাদীসঃ হযরত মোহাম্মদ (সঃ) বলিয়াছেন- বাপে যদি ছেলেকে নেক কাজ করিতে সহায়তা করে তবে সেই বাপের উপর আল্লাহ্র রহমত নাজেল হইবে।

 

হাদীসঃ হযরত মোহাম্মদ (সঃ) বলিয়াছেন- তোমরা তোমাদের ছেলে মেয়েদের সমান চোখে দেখ, তাহাদের কিছু দিতে হইলে সমান সমান দাও।

 

মাছালাঃ ছেলে মেয়েদের দেওয়ার মধ্যে কিছু বেশ-কম করিলে দান হেইয়া যাইবে, কিন্তু এরূপ করা মাক্রহ।কিন্তু যদি কোন ছেলে বা মেয়ের কোন বিশিষ্টি গুণ এবং তৎকারণে তাহাকে কিছু বেশি দেয় তবে তাহা জায়েয আছে। এইরূপে যদি ছেলে বা মেয়ের বিশেষ কোন দোষ থাকে এবং মা বাপের নাফরমান হয় তবে তাহাকে না দেওয়াও দোরস্ত আছে।দানের মধ্যে ছেলে এবং মেয়ে উভয়ের সমান হক।

মোঃ আবুল বাশার

আমি একজন ছাত্র,আমি লেখাপড়ার মাঝে মাঝে একটা ছোট্ট পত্রিকা অফিসে কম্পিউটার অপরেটর হিসাবে কাজ করে,নিজের হাত খরচ চালানোর চেষ্টা করি, আমি চাই ডিজিটাল বাংলাদেশ হলে এবং তাতে সেই সময়ের সাথে যেন আমিও কিছু শিখতে পারি। আপনারা সকলে ৫ ওয়াক্ত নামাজ পরার চেষ্টা করুন এবং অন্যকেও ৫ওয়াক্ত নামাজ পরার পরামর্শ দিন। আমার পোষ্ট গুলো গুরে দেখার জন্য ধন্যবাদ, ভাল লাগেলে কমেন্ট করুন। মানুষ মাত্রই ভুল হতে পারে,ভুল ত্রুটি,হাসি,কান্না,দু:খ,সুখ,এসব নিয়েই মানুষের জীবন। ভুলে ভড়া জীবনে ভুল হওয়াটা অসম্ভব কিছু নয়,ভুল ত্রুটি ক্ষমার দৃর্ষ্টিতে দেখবেন। আবার আসবেন।

Leave a Reply