হাদীস (পর্ব ০৭) “ঈদ মোবারক” “ঈদ মোবারক” “ঈদ মোবারক”

পরম করুনাময় আল্লাহ্ এর নামে শুরু করলাম

 

আসসালামু আলাকুম, কেমন আছেন সবাই? আশা করি ভালই আছেন, আমি ও আমরা আপনাদের দোয়ায় এবং আল্লাহ্র অশেষ রহমতে অনেক ভাল আছি।

ঈদ মোবারক, ঈদ মোবারক, ঈদ মোবারক

কোরবানি মোবারক, কোরবানি মোবারক, কোরবানি মোবারক 😛

কি গরু জবেহ করেছেন? 😛

আমার জন্য গোস্ত রেখে দিয়েন, তারপরে আমাকে দাওয়াত দিয়েন আমি এসে খেয়ে যাব, শর্ত প্রয়োজ্য: আমি আপনাদের খাওয়াতে পারব না 😀 😛

যাক কাজের কথায় আসি।

 

 

 

পর্ব এক

পর্ব ০২

পর্ব ০৩

পর্ব ০৪

পর্ব ০৫

পর্ব ০৬

হাদীসঃ হযরত মোহাম্মদ (সঃ) বলিয়াছেন “আন্তা অ মা-লুকা লি আবি-কা”।

অর্থঃ তুমি এবং তোমার মার সবই তোমার বাপের।

উপদেশঃ মা বাপের খেদমত যে করিবে তাহার দারিদ্রতা দূর হইয়া যাইবে এবং ধন-দৌলত বৃদ্ধি হইবে।

 

হাদীসঃ হযরত মোহাম্মদ (সঃ) বলিয়াছেন-“তিন প্রকারের লেঅকের উপর কেয়ামতের দিন আল্লাহ্র দয়া দৃষ্টি হইবে না: (০১) যে মা বাপকে অসন্তুষ্ট রাখিবে, (০২) যে নেশা পানের অভ্যাস রাখিবে এবং (০৩) যে দান করিয়া তাহার খোটা দিবে।

 

হাদীসঃ হযরত মোহাম্মদ (সঃ) বলিয়াছেন-“এই কয়টি সবেচেয়ে বড় কবিরা  গোনাহঃ (১) আল্লাহ্র সঙ্গে শরিক করা, (২) মা বাপকে কষ্ট দেওয়া, (৩) মানুষ খুন করা, (৪) মিথ্যা কথা বলা।

হাদীসঃ কেয়ামতের দনি যখন মা বাবাও আপনাকে আমাকে চিনতে পারবে না, তখন আপনার সব চেয়ে উপকারী বন্ধুকে কে হবে? যানেন? চিনে নিন। তখন সবচেয়ে উপকারী বন্ধু হিসাবে আপনি পাবেন তাকে যার কাছে আপনি দুনিয়াতে বসে এক তিল পরিমানও টাকা পাওনা ছিল, হযরত মোহাম্মদ (সঃ) বলেন- দুনিয়াতে যদি কেহ কারো টাকা পয়সা না দেয়া বা ঠকিয়ে খায় তাহলে কেয়ামতের দিন আপনি তার কাছে যত টাকা পাইতেন তার ন্যায্য মূল্য ধরিয়া আল্লাহ্ তার নেক আমল থেকে ঐ টাকার নেক আমল আপনাকে দিয়ে দিবে, যেখানে আপনার মা বাবাও একটি নেকি আপনাকে দিতে চাইবে না, তাই আপনি যদি কারো কাছে টাকা পয়সা পান তাহলে তাকে কেয়ামতের ভয় দেখান এবং টাকা আদায় করার চেষ্টা করুন কিন্তু ভুলেও কখনও গালাগালি করিবেন না, তাহলে আপনারও পাপ হবে, তাই গালাগালি না করিয়া যদি টাকা তুলিতে না পারেন তাহলে বাসায় এসে আল্লাহ্ র কাছে শুকরিয়া জানান, এবং কেয়ামতের জন্য অপেক্ষা করুন সঠিক বিচার পাবেন।

ভাল লাগলে কমেন্টে জানাতে ভুলবে না…

ভুলে ভরা জীবনে ভুল হওয়াটা অসম্ভব কিছু নয়,যদি আমার লেখার মাঝে কোন ভুলত্রুটি থাকে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন। ধন্যবাদ সবাই ভাল থাকবেন।

 

মোঃ আবুল বাশার

আমি একজন ছাত্র,আমি লেখাপড়ার মাঝে মাঝে একটা ছোট্ট পত্রিকা অফিসে কম্পিউটার অপরেটর হিসাবে কাজ করে,নিজের হাত খরচ চালানোর চেষ্টা করি, আমি চাই ডিজিটাল বাংলাদেশ হলে এবং তাতে সেই সময়ের সাথে যেন আমিও কিছু শিখতে পারি। আপনারা সকলে ৫ ওয়াক্ত নামাজ পরার চেষ্টা করুন এবং অন্যকেও ৫ওয়াক্ত নামাজ পরার পরামর্শ দিন। আমার পোষ্ট গুলো গুরে দেখার জন্য ধন্যবাদ, ভাল লাগেলে কমেন্ট করুন। মানুষ মাত্রই ভুল হতে পারে,ভুল ত্রুটি,হাসি,কান্না,দু:খ,সুখ,এসব নিয়েই মানুষের জীবন। ভুলে ভড়া জীবনে ভুল হওয়াটা অসম্ভব কিছু নয়,ভুল ত্রুটি ক্ষমার দৃর্ষ্টিতে দেখবেন। আবার আসবেন।

Leave a Reply