কুরআনের কথা

***“সেদিন মানুষ তার ভাই থেকে, তার মা-বাপ ও স্ত্রী-পুত্র-পরিজন থেকে পলায়ন করবে। তাদের প্রত্যকেরই এরুপ ব্যস্ততা হবে যে, কেউ কারো দিকে মনোযোগী হতে পারবে না” (সূরা আবাসাঃ৩৪-৩৭)।

***“হে মানবজাতি! তোমরা তোমাদের রবকে ভয় করো। নিৎসন্দেহে কিয়ামতের কম্পন ভীষণ ব্যাপার হবে। সেদিন তোমরা দেখতে পাবে স্তন্যদায়িনী নারীরা তাদের স্তন্যপায়ী সন্তানদের ভুলে যাবে এবং সকল  গর্ভবতী নারী গর্ভপাত করবে, আর মানুষকে দেখতে পাবে নেশাগ্রস্ত মাতালের মতো,অথচ তারা মাতাল নয়; অধিকন্তু আল্লাহ তায়ালার আযাব অত্যন্ত কঠোর “ (সূরা আল-হজ্জঃ১-২)।

***পবিত্র কুরআনে আল্লাহ তায়ালা বলেছেন-

“প্রত্যেক ব্যক্তিকেই অবশেষে মরতে হবে এবং তোমরা নিজ নিজ প্রতিফল কিয়ামতের দিন পুরাপুরিভাবেই পাবে। সফল হবে সেই ব্যক্তি, যে সেদিন জাহান্নামের আগুন থেকে রক্ষা পাবে এবং যাকে জান্নাতে দাখিল করা হবে। বস্তুত এ দুনিয়ার জীবন একটি প্রতারণাময় জিনিস” (সূরা আল ইমরানঃ১৮৫)।

“কোন প্রাণীই জানে না যে, আগামী কাল সে কি উপার্জন করবে, না কেউ জানে তার মৃত্যু হবে কোন জমিনে”(সূরা লুকমানঃ৩৪)।

“আল্লাহ তায়ালা আরো বললেনঃ “যখন তাদের সময় আসে তখন তারা মুহূর্তকাল অগ্রবর্তী বা পশ্চাতবর্তী হতে পারে না”(সূরা নাহল-৬১)

মোঃ আবুল বাশার

আমি একজন ছাত্র,আমি লেখাপড়ার মাঝে মাঝে একটা ছোট্ট পত্রিকা অফিসে কম্পিউটার অপরেটর হিসাবে কাজ করে,নিজের হাত খরচ চালানোর চেষ্টা করি, আমি চাই ডিজিটাল বাংলাদেশ হলে এবং তাতে সেই সময়ের সাথে যেন আমিও কিছু শিখতে পারি। আপনারা সকলে ৫ ওয়াক্ত নামাজ পরার চেষ্টা করুন এবং অন্যকেও ৫ওয়াক্ত নামাজ পরার পরামর্শ দিন। আমার পোষ্ট গুলো গুরে দেখার জন্য ধন্যবাদ, ভাল লাগেলে কমেন্ট করুন। মানুষ মাত্রই ভুল হতে পারে,ভুল ত্রুটি,হাসি,কান্না,দু:খ,সুখ,এসব নিয়েই মানুষের জীবন। ভুলে ভড়া জীবনে ভুল হওয়াটা অসম্ভব কিছু নয়,ভুল ত্রুটি ক্ষমার দৃর্ষ্টিতে দেখবেন। আবার আসবেন।

Leave a Reply