আলাহর “জিকির” রোগ নিরাময়ের সর্বোত্তম ওষুধ

আসসালামু আলাইকুম বন্ধুরা। কেমন আছেন সবাই। আশা করি আল্লাহ রহমতে সবাই ভালোই আছেন। গত কয়েক দিন আগের একটি ঘটনা, আপনারা হয়তবা ঘটনাটি অনেকেই জানেন । তবু যদি কোন ভাই বা বোন ঘটনাটি না জানেন তাদের জন্যই এই নয়া আবিষ্কারের বিষয়টি শেয়ার করলাম।

নেদারল্যান্ডের মনোবিজ্ঞানী ভ্যান্ডার হ্যাভেন পবিত্র কোরান অধ্যয়ন ও বারবার “আল্লাহ” শব্দটি উচ্চারণে রোগী ও স্বাভাবকি মানুষের ওপর তার প্রভাব সম্পর্কিত একটি নয়া আবিস্কারের কথা ঘোষণা করেছেন। ওলন্দাজ এই অধ্যাপক বহু রোগীর ওপর দীর্ঘ তিন বছর পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালিয়ে ও অনেক গবেষণার পর এই আবিস্কারের কথা ঘোষণা করেন। যেসব রোগীর ওপর তিনি সমীক্ষা চালান তাদের মধ্যে অনেক অমুসলিমও ছিলেন, যারা আরবি জানেন না্ তাদের পরিস্কারভাবে “আল্লাহ”শব্দটি উচ্চারণ করার প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। এই প্রশিক্ষনের ফল ছিল বিস্ময়কর, বিশেষ করে যারা বিষন্নতা ও মানসিক উত্তেজনায় ভুগছিলেন তাদের ক্ষেত্রে। সৌদি আরব থেকে প্রকাশিত দৈনিক আল-ওয়াতান পত্রিকা হ্যাভেনের উদ্ধৃতি দিয়ে জানায়, আরবি জানা মুসলমানরা যারা নিয়মিত কোরাআন তিলাওয়াত করেন তারা মানসিক রোগ থেকে রক্ষা পেতে পারেন।
“আল্লাহ” কথাটি কিভাবে মানসিক রোগ নিরাময়ে সাহায্য করে তার ব্যাখ্যাও তিনি দিয়েছেন। তিনি তার গবেষণা কর্মে উল্লেখ করেন, “আল্লাহ” শব্দটির প্রথম বর্ণ অ তথা (আলিফ) আমাদের শ্বাসযন্ত্র থেকে আসে বিধায় তা শ্বাস-প্রশ্বাস নিয়ন্ত্রণ করে। তিনি আরও বলেন  কানসোন্যান্ট ‘খ’ তথা ‘লাম’ বর্ণটি উচ্চারণ করতে গেলে জিহবা উপরের মাঢ়ী সামান্য স্পর্শ করে একটি ছোট বিরতি সৃষ্টি করে এবং তারপর একই বিরতি দিয়ে এটাকে বারবার উচ্চারণ করতে থাকলে আমাদের শ্বাসযন্ত্রে একটা স্বস্তিবোধ হতে থাকে।
শেষ বর্ণে ‘হা’- এর উচ্চারণ আমাদের ফুসফুস ও হৃৎযন্ত্রের মধ্যে একটা যোগসূত্র সৃষ্টি করে তা আমাদের হৃৎযন্ত্রের স্পন্দনকে নিয়ন্ত্রণ করে।

০৮ আগস্ট ২০০৮ শুক্রবার; ২৪ শ্রাবণ ১৪১৫।
The Daily Jugantor

Leave a Reply