হাদীস (পর্ব-৩৫) (পবিত্র রমজানের হাদীস)

পরম করুনাময় আল্লাহ্ এর নামে শুরু করলাম

আসসালামু আলাইকুম, কেমন আছেন সবাই? আশা করি ভালই আছেন, আমি ও আমরা আপনাদের দোয়ায় এবং আল্লাহ্র অশেষ রহমতে অনেক ভাল আছি।বেশি হাদীস দেই না, কারন আমার মত অনেক লোক আছে, যারা বেশি লেখা দেখলে সেটা পড়তে চায় না, তাই অল্প কয়েকটা হাদীস দিলাম, যারা যত ব্যস্তই থাকুক এই অল্প কয়টি হাদীস পড়ে নিতে পারবে, এবং অল্প হবার কারনে মনে রাখতে পারবে আবার তা আমল করারও চেষ্টা করবে।

পর্ব এক     পর্ব ০২     পর্ব ০৩     পর্ব ০৪     পর্ব ০৫     পর্ব ০৬     পর্ব ০৭

পর্ব ০৮     পর্ব ০৯     পর্ব ১০     পর্ব-১১     পর্ব-১২     পর্ব-১৩     পর্ব-১৪

পর্ব ১৫     পর্ব ১৬     পর্ব-১৭     পর্ব-১৮     পর্ব-১৯     পর্ব-২০     পর্ব-২১

পর্ব-২২     পর্ব-২৩     পর্ব-২৪     পর্ব-২৫     পর্ব-২৬     পর্ব-২৭     পর্ব-২৮

পর্ব-২৯     পর্ব-৩০     পর্ব-৩১     পর্ব-৩২     পর্ব-৩৩     পর্ব-৩৪

# হযরত উবাদা ইবনে সামেত (রাযিঃ) বর্ণনা করেন, রমযান মাসের নিকটবর্তী সময়ে একদিন হুযূর সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলিলেন যে, রমযানের মাস আসিয়া গিয়াছে। যাহা অতি বরকতের মাসে। এই মাসে আল্লাহ তায়ালা তোমাদের প্রতি বিশেষ দৃষ্টি দেন, বিশেষ রহমত নাযিল করেন, গোনাহ মাফ করেন এবং দোয়া কবুল করেন। তোমাদের তানাফুসকে (অর্থাৎ পরস্পর প্রতিযোগিতা) দেখেন এবং ফেরেশতাদের সহিত গর্ব করেন। অতএব তোমরা আল্লাহ এক তোমাদের নেক কাজ দেখাও। ঐ ব্যক্তি বড়ই হতভাগা যে এই মাসেও আল্লাহর রহমত হইতে মাহরূম ও বঞ্চিত থাকিয়া যাইবে। (তারগীবঃতাবারানী)

ফায়দাঃ ‘তানাফুস’ শব্দের অর্থ প্রতিযোগিতা, অর্থাৎ অন্যের তুলনায় বেশি করার আগ্রহ লইয়া কাজ করা। যাহারা গর্ব ও প্রতিযোগিতা করিতে চায় তাহারা এই ক্ষেত্রে তাহাদের কৃতিত্ব দেখাক। আমি গর্বস্বরূপ নহে বরং নেয়ামতের প্রকাশ ও শোকরিয়া স্বরূপ বলিতেছি, নিজের অযোগ্যতার কারণে যদিও কিছু করিতে পারি না কিন্তু আমার ঘরের মহিলাদের অবস্থা দেখিয়া আনন্দিত হই যে, তাহাদের অধিকাংশই তেলাওয়াতের ব্যাপরে একে অপরের তুলনায় আগে বাড়িয়া যাওয়ার চেষ্টা করিতে থাকে। ঘরের কাজকর্ম সত্ত্বেত দৈনিক ১৫/২০ পারা সহজে পড়িয়া নেয়। আল্লাহ তায়ালা দয়া করিয়া এইটুকু কবুল করিয়া নিন এবং আরো বেশি আমল করিবার তওফীক দান করুন।

ভাল লাগলে কমেন্টে জানাতে ভুলবে না…

ভুলে ভরা জীবনে ভুল হওয়াটা অসম্ভব কিছু নয়,যদি আমার লেখার মাঝে কোন ভুলত্রুটি থাকে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন। ধন্যবাদ সবাই ভাল থাকবেন।

মোঃ আবুল বাশার

আমি একজন ছাত্র,আমি লেখাপড়ার মাঝে মাঝে একটা ছোট্ট পত্রিকা অফিসে কম্পিউটার অপরেটর হিসাবে কাজ করে,নিজের হাত খরচ চালানোর চেষ্টা করি, আমি চাই ডিজিটাল বাংলাদেশ হলে এবং তাতে সেই সময়ের সাথে যেন আমিও কিছু শিখতে পারি। আপনারা সকলে ৫ ওয়াক্ত নামাজ পরার চেষ্টা করুন এবং অন্যকেও ৫ওয়াক্ত নামাজ পরার পরামর্শ দিন। আমার পোষ্ট গুলো গুরে দেখার জন্য ধন্যবাদ, ভাল লাগেলে কমেন্ট করুন। মানুষ মাত্রই ভুল হতে পারে,ভুল ত্রুটি,হাসি,কান্না,দু:খ,সুখ,এসব নিয়েই মানুষের জীবন। ভুলে ভড়া জীবনে ভুল হওয়াটা অসম্ভব কিছু নয়,ভুল ত্রুটি ক্ষমার দৃর্ষ্টিতে দেখবেন। আবার আসবেন।

One thought on “হাদীস (পর্ব-৩৫) (পবিত্র রমজানের হাদীস)

Leave a Reply