তাওবাতান নাসুহা এর বর্ণনা

পবিত্র কোরআনে মহান আল্লাহ নাসুহার মত তাওবা করতে বলেছিল। কে এই নাসুহা? কি ছিল তার তাওবা? কেউ জানলে একটু জানাবেন।

কোরআনের আয়াতের বাংলা অর্থটা এমন: “ হে ইমানদারগণ তোমার আল্লাহর নিকট তাওবা কর নাসুহার তাওবার মত”

Omur

ইসলামের শিক্ষার কঠোর অনুসরণ, দয়ার সাথে দৃঢ়তার মিশ্রণ, কঠোরতার সাথে সুবিচারের সমতাবিধান এবং মানুষের প্রতি দায়িত্বশীলতার অপর নামই ওমর মোহাম্মদ ফারুক!

10 thoughts on “তাওবাতান নাসুহা এর বর্ণনা

  • April 26, 2013 at 4:27 pm
    Permalink

    আসসালামু আলাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহ ভাই ।আপনি যদি পোস্ট লিখেন তাহলে সর্বনিম্ন ২৫০ শব্দ লিখতে হবে ।

  • April 30, 2013 at 6:04 am
    Permalink

    omur.mohammadfaruk.faruk ভাই,আপনি যে অনুবাদ করেছেন তা সঠিক নয়।আপনি যে নাসুহার কথা বলেছেন তা কোন ব্যক্তি নয় বরং তার অর্থ হল ঃ-

    খাটিভাবে
    একনিষ্ঠভাবে
    বিনয়ের সাথে

    এটা সুরা তাহরীমের ৮ম আয়াত।আপনার সুবিধার জন্য আমি আয়াত ও তার অর্থ উল্লেখ করালাম।

    يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُوا تُوبُوا إِلَى اللَّهِ تَوْبَةً نَّصُوحًا
    মুমিনগণ! তোমরা আল্লাহ তা’আলার কাছে তওবা কর-আন্তরিক তওবা।

  • April 30, 2013 at 6:38 pm
    Permalink

    হেলার ভাই, আপনাকে ধন্যবাদ। আমি বিভিন্ন ওয়াজের শেষ মুনাজাতে কথাটি শুনেছি। কথাটি এ রকম, “ আল্লাহ তুমি আমাদের তাওবাকে নুসুহার তাওবার মত কবুল করে নাও” । হেলাল ভাই আমি তাফসীরটি পড়েছি। তবে আপনি যদি নুসুহা সম্পর্কে কিছু জানেন তাহলে জানাবেন।

  • May 2, 2013 at 1:12 pm
    Permalink

    আমি আপনার প্রশ্নের পর জানা স্বত্বেও আবার তাফসীর খুলে পড়েছি।তাই আবার বলছি “নাসুহা” দ্বারা কোন ব্যক্তি উদ্দেশ্য নয়,বরং এর অর্থ আগে যা বলেছি তাই ঠিক।

  • January 8, 2014 at 11:19 pm
    Permalink

    ফারুক ভায়ের শাথে আমি ও একমত যে এখানে নাসুহার দ্বারায় কোন ব্যাক্তি উদ্যেশ্য নয়।

Leave a Reply