এখনও বুঝতে পারেন নাই কে হকের পক্ষে আর কে বাতিলের পক্ষে আছে?

হেফাজতে ইসলামের লংমার্চ ও আন্দোলন হচ্ছে- মুসলিম vs নাস্তিক/মুরতাদ এর।
সিদ্ধান্ত আপনার আপনি কি মুসলিম এর পক্ষ নিবেন না নাস্তিক/মুরতাদ কুলাঙ্গারের পক্ষ নিবেন।

এখনও বুঝতে পারেন নাই কে হকের পক্ষে আর কে বাতিলের পক্ষে আছে?
ভাই সহজ হিসাব, যারা ইসলামের শত্রুর বিরুদ্ধে আন্দোলন করে তারাই হকের পক্ষে এবং যারা ইসলামের শত্রুর পক্ষে আছে তারাই মুলত বাতিলের পক্ষে আছে।। আজকে ইসলামের শত্রু কিছু নামধারী মুসলিমের অবস্থা কুরআনের আয়াতের সাথে সম্পূর্ণ মিলে গেছে।

“আর মানুষের মধ্যে কিছু লোক এমন রয়েছে যারা বলে, আমরা আল্লাহ ও পরকালের প্রতি ঈমান এনেছি অথচ আদৌ তারা ঈমানদার নয়।” [সূরা বাকারা : ৮]

“তারা আল্লাহ এবং ঈমানদারগণকে ধোঁকা দেয়। অথচ এতে তারা নিজেদেরকে ছাড়া অন্য কাউকে ধোঁকা দেয় না অথচ তারা তা অনুভব করতে পারে না। ” [সূরা বাকারা : ৯]

“তাদের অন্তঃকরণ ব্যধিগ্রস্ত আর আল্লাহ তাদের ব্যধি আরো বাড়িয়ে দিয়েছেন। বস্তুতঃ তাদের জন্য নির্ধারিত রয়েছে ভয়াবহ আযাব, তাদের মিথ্যাচারের দরুন।” [সূরা বাকারা : ১০]

“আর যখন তাদেরকে বলা হয় যে, দুনিয়ার বুকে দাঙ্গা-হাঙ্গামা সৃষ্টি করো না, তখন তারা বলে, আমরা তো মীমাংসার পথ অবলম্বন করেছি। মনে রেখো, তারাই হাঙ্গামা সৃষ্টিকারী, কিন্তু তারা তা উপলব্ধি করে না।” [সূরা বাকারা : ১১-১২]

“আর যখন তাদেরকে বলা হয়, অন্যান্যরা যেভাবে ঈমান এনেছে তোমরাও সেভাবে ঈমান আন, তখন তারা বলে, আমরাও কি ঈমান আনব বোকাদেরই মত! মনে রেখো, প্রকৃতপক্ষে তারাই বোকা, কিন্তু তারা তা বোঝে না।” [সূরা বাকারা : ১৩]

“আর তারা যখন ঈমানদারদের সাথে মিশে, তখন বলে, আমরা ঈমান এনেছি। আবার যখন তাদের শয়তানদের সাথে একান্তে সাক্ষাৎ করে, তখন বলে, আমরা তোমাদের সাথে রয়েছি। আমরা তো (মুসলমানদের সাথে) উপহাস করি মাত্রা।” [সূরা বাকারা : ১৪]

ভাই এই জীবনই শেষ জীবন না, এর পরও জীবন আছে। আর সেটা হচ্ছে চিরস্থায়ী। সময় থাকতে বিবেক খাটান আপনি হকের পথে আছেন কিনা। সময় থাকতে আল্লাহ্‌র পথে আসেন।

আল্লাহ্‌ আমাদেরকে সঠিক ও হকের পথে চলার তউফিক দান করেন। আমিন

ইসলামিক এমবিট টিম

এসো হে তরুন,ইসলামের কথা বলি

One thought on “এখনও বুঝতে পারেন নাই কে হকের পক্ষে আর কে বাতিলের পক্ষে আছে?

Leave a Reply