মান্নত

মহাত্নন,
যথা বিহিত সম্মান প্রদর্শণ পূর্বক বিনীত নিবেদন এইযে, আমি মান্নত করেছি , আমার অমুক কাজ পূর্ণ হলে আমি “আড়াই সন্দের রোজা রাখবো” অর্থাৎ আড়াই চাঁদ (আমাদের সমাজে আড়াই সন্দ বলতে রমজানের পর থেকে কুরবান পর্যšত সময়কে বুঝায়।) বর্তমানে আমার উক্ত কাজ পূর্ণ হয়েছে। আড়াই চাঁদে ৭৫দিন হয় কিন্তু রমযান থেকে কুরবান পর্যšত মাত্র ৬৮/৬৯ দিন হয়। তাই আমার প্রশ্ন হচ্ছে উক্ত মান্নত সহীহ হবে কি না ?

নিবেদক
মুহাম্মদ ওমর ফারুক,নেত্রকোণা।
উত্তরঃ
কোন মোবারক উদ্দেশ্য সফলের জন্য মান্নত করা বৈধ। উদ্দেশ্য সফলের পর মান্নত পূরণ করতে হয়। মান্নতের ক্ষেত্রে বাক্যের মর্মার্থ নির্ধারণে সমাজ ও প্রচলন বিরাট প্রভাব রাখে, যা শরীয়তের দৃষ্টিতে ও গ্রহণ যোগ্য । বিধায় আপনার উক্ত মান্নত সঠিক হয়েছে। উদ্দেশ্য সফলের কারণে তা পূরণ কর ও জরুরী হয়ে পড়েছে, এবং “আড়াই সন্দের” যে প্রচলন সমাজে আছে। (অর্থাৎ ৬৮/৬৯ দিন) সে অনুপাতে রোযা রাখলে মান্নত পূরণ হয়ে যাবে। ৭৫দিন রোযা রাখা জরুরী নয়।

রেফারেন্সঃ

হিদায়া: পৃঃ ৪৮৩ খঃ ২. বাদায়েউস সানায়ে’ খঃ ৪ পৃঃ ২৪১.

ফাতওয়ায়ে শামী: পৃঃ ৫২৮ খঃ ৫.মাহমুদিয়া : পৃঃ ২৩৯ খঃ ২০.

আহসানুল ফাতওয়া: পৃঃ ৪৮৪ খঃ ৫)

জনাব,
আমার জানার বিষয় হল যে, আমাদের দেশের প্রচলিত জমি “রেহান” ব্যবস্থা কতটুকু বৈধ। (যেমনঃ জাহেদ খালেদের কাছে একটি জমিন নির্দিষ্ট টাকার বিনিময়ে রেহান রাখল এই শর্তে যে, যখন উক্ত টাকা পরিশোধ করে দিবে সাথে সাথে খালেদ জমিনটি জাহেদ কে দিয়ে দিবে।) এবং জমিনটি খালেদের নিকট থাকা কালীন সময়ে খালেদ জমিনের উৎপাদিত ফসল ভোগ করতে পারবে কি না ?
উল্লেখ্য ঃ এব্যাপারে শরীয়তের বিধান জানানোর সাথে সাথে বর্তমানে কি রুপে করলে শরীয়ত মোতাবেক হবে তা জানালে খুব উপকৃত হব।

নিবেদক
sharafatkarim@gmail.com
উত্তরঃ
শরীয়তের দৃষ্টি জায়গা-জমি বন্ধক দেওয়া-নেওয়ার অনুমতি রয়েছে। তবে বন্ধককৃত জমি থেকে

বন্ধক গ্রহীতা কোন প্রকারের উপকার গ্রহণ করা বৈধ নয়। বিধায় প্রচলিত

বন্ধকীকরণের পদ্ধতি শরীয়ত সমর্থিত নয়।

জমি ‘রেহান’ যে পদ্ধতিতে করলে শরীয়ত সম্মত হবে তা নিম্নরূপঃ

বন্ধকদাতা ও গ্রহীতা বন্দকীকরণের চুক্তি সম্পন্ন করার পর পৃথক ভাবে

বন্ধক গ্রহীতা বন্দক দাতার সাথে একটি নতুন চুক্তিতে আবদ্ধ হবে যে,

উক্ত জমিটি নির্দিষ্ট সময়ের জন্য নির্দিষ্ট পরিমান টাকার বিনিময়ে যেমন এক বছরে দশ হাজার টাকার বিনিময়ে ইজারা/লাগিত নিলাম।

এ অবস্থায় ইজারা আদায়ের বিনিময়ে জমি থেকে নির্দিষ্ট মেয়াদে উপকৃত হওয়া যাবে। অন্যদিকে ঋণ প্রদানের উপর জমিনটিকে রেহান /

বন্ধক ও রাখা হবে।

উল্লেখ্য : ইজারার বিনিময়ে প্রদত্ত টাকা যেন অবশ্যই যুক্তিযুক্ত হয়।

(রেফারেন্স ঃমিশকাত শরীফ : পৃঃ ২৪৮ খঃ ১.

ফাতওয়ায়ে শামী:পৃঃ৮৩ খঃ ১০.

আল-মুগনী:পৃঃ ১০৩ খঃ৬.

ইমদাদুল ফাতওয়া: পৃঃ ৪৫৪ খঃ ৩.

মাহমুদিয়া: পৃঃ ৩৭৮ খঃ ২৫.

কিফায়াতুল মুফতি: পৃঃ ১৪৭ খঃ ৮ )

 

ওমর ফারুক হেলাল

তেমন কেউ না,একজন ছাত্র।মাদ্রাসায় পড়ালেখা করছি ভালো আলেম হওয়ার আশায়।পাশাপাশি দ্বীনে কিছু কাজের সাথে জড়িত আছে পরকালীন মুক্তির নেশায়। আল্লাহ আমাকে কবুল করুক। আমীন

Leave a Reply