শিরক: পর্ব-২

পবিত্র কোরআনে উল্লেখিত শিরক সমূহ:

asdd

  1. আল্লাহ ছাড়া অন্য কাউকে সেজদা করা: এ ব্যাপারে মহান আল্লাহ তায়ালা বলেন,“তোমরা সূর্যকে সেজদা করোনা, চন্দ্রকে ও নয়, সেজদা কর সেই আল্লাহকে যিনি এগুলো সৃষ্টি করেছেন, যদি তোমরা প্রকৃত পক্ষে তারই ইবাদাত কর।”(সূরা ফুসসিলাতঃ আয়াত-৩৭)।
  2. আল্লা্হ ছাড়া কারো নিকট সাহায্য প্রার্থনা করা: পবিত্র কোরআনে এসেছে-“সুতরাং তোমরা আল্লাহর সাথে অন্য কাউকে ডেকোনা।” (সূরা জ্বিনঃ আয়াত-১৮) অন্যত্র এসেছে-“বলুন তোমরা ভেবে দেখ যে তোমাদের উপর শাস্তি আরোপিত হলে, অথবা তোমাদের নিকট কিয়ামত উপস্থিত হলে তোমরা কি আল্লাহ ব্যতীত অন্য কাউকে ডাকবে? বল যদি তোমরা সত্যবাদী হ্ও? বরং তোমরা শুধু তাকেই ড়াকবে, তোমাদের সে বিপদ তিনি দূর করবেন এবং যাদেরকে তোমরা শরীক করতে তাদেরকে তোমরা ভুলে যাবে।” (সূরা আনআমঃ আয়াত-৪০,৪১)
  3. আলেমগনকেরবহিসেবে গ্রহন করাঃ “তারা আল্লাহ ব্যতীত তাদের পণ্ডিত গনকে সংসার বিরাগীগণকে রব্ বা মালিক হিসেবে গ্রহণ করেছে” এ আয়াতটি নাযিলের পর আদি ইবনে হাতিম রাসূল (সঃ) কে এ বিষয়ে প্রশ্ন করলে উত্তরে তিনি বলেন-“এসকল আলেম-দরবেশ তাদের জন্য অনেক বিষয় হালাল করে দিতো। তখন তারা তা হালাল বলে গ্রহন করতো। অনুরূপভাবে অনেক বিষয় তারা হারাম করে দিতো, তখন তারা তা হারাম বলে গ্রহন করতো।” (তিরমিযিী)
  4. জবাই/উৎসর্গের মাধ্যমে নৈকট্য লাভের চেষ্টাঃ মুশরিকদের শিরকের আরেকটি পদ্ধতি হচ্ছে মূর্তি বা গ্রহ নক্ষত্রের করুনা লাভের উদ্দেশ্যে তাদের নামে জবাই করা। এ বিষয়ে আল্লাহ বলেন-“বাহীরাহ, সায়িবা, ওয়াসিলা ও হাম আল্লাহ স্থির করেননি; কিন্তু কাফিরগন আল্লাহর প্রতি মিথ্যা আরোপ করে এবং তাদের অধিকাংশই উপলব্ধি করেনা।” (সূরা মায়িদা: আয়াত-১০৩)
  5. পবিত্র নামের শপথ করা: আল্লাহ ছা্ড়া অন্য কারো নামে শপথ করার ব্যাপারে হাদীসে্ এসেছে-আব্দুল্লাহ ইবনে ওমর(রাঃ) বলেন রাসূলুল্লাহ(সঃ) বলেন “যে ব্যক্তি আল্লাহ ছাড়া অন্য কারো নামে শপথ করল সে কুফরী করলো অথবা শিরক করলো ।”(তিরমিযী)
  6. আল্লাহ ছাড়া অন্যের যিয়ারতের সফরঃ মুশরিকরা তাদের উপাস্যের স্মৃতি বিজড়িত স্থানকে বরকতময় বলে বিশ্বাস করতো্। ইসলামী শরীয়তে এরূপ করতে নিষেধ করা হয়েছে। রাসূলুল্লাহ (সঃ) বলেন “তিনটি মসজিদ ছাড়া কোথা্ও সফরে যাওয়া যাবেনা-মসজিদুল হারাম, আমার মসজিদ(মসজিদে নবুবী),মসজিদুল আকসা ।”(বুখারী ও মুসলিম)……

2 thoughts on “শিরক: পর্ব-২

Leave a Reply