আপনি যেই টিউন করছেন, সেই কাজটা নিজে পালন করছেন কি? আসুন কিছু হাদিস জানি এবিষয়ে ।

আসসালামু আলাইকুম ।
আশা করি মহান আল্লাহ তায়ালার অশেষ রহমতে ভালো আছেন । আজকে আমি যেই ব্লগটা করতে যাচ্ছি এটি আমাদের সবার, বিশেষ করে ব্লগারদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপুর্ণ বিষয় । আমাদের ওয়েবসাইট মুলত ইসলামের জন্য কাজ করতে অংগীকারবদ্ধ এবং আমাদের মুল লক্ষ ইসলামের অপ্রচলিত ও প্রচলিত সকল বিধান সম্পর্কে পুনরালোচনা করা । এর মধ্যে উপদেশ বিষয়টা একটা বিশেষ স্থান পাওয়ার অধিকারী । ইসলাম সর্বদা মুসলিমগণকে ইসলামী শরীয়তের প্রতি দৃষ্টিপাত করতে, সতকাজের আদেশ করতে এবং অসত কাজ থেকে নিষেধ করতে বলেছে । আজকে আমি এদের মধ্যে সতকাজের আদেশ সম্পর্কিত বিষয়ে সম্যক আলোচনা করতে যাচ্ছি ।

পবিত্র কোরআনে অসংখ্য জায়গায় বর্ণিত হয়েছে – “أمر بالمعروف” বা “তোমরা সৎ কাজের আদেশ দাও” । কিন্তু সৎ কাজের আদেশ যদি দিতে হয়, তাহলে সর্বপ্রথম ওই সৎ গুনের অধিকারী আদেশকারীর নিজেকে হতে হবে । অর্থাৎ, কোনো কিছুর নিজে পালন করে তারপর অন্যের কাছে পৌঁছিয়ে দিতে ইসলাম কঠোরভাবে আদেশ করেছে । এবিষয়ে একটি হাদীস নিম্নরুপঃ –

হযরত আনাস রাঃ হতে বর্ণিততিনি বলেন, রাসুলুল্লাহ সাঃ ইরশাদ করেন, মিরাজের রাতে আমি বহু লোককে দেখেছি যে, তাদের ঠোঁট আগুনের কাচি দ্বারা কাটা হচ্ছে । আমি জিজ্ঞেস করলাম, হে জিবরাঈল! এরা কারা? জিবরাঈল আঃ বললেন, এরা আপনার উম্মতের বক্তাগণ, যারা লোকদেরকে ভালো কাজের আদেশ করত; কিন্তু নিজেদেরকে ভুলে যেত । অর্থাৎ, নিজেরা হক ও ন্যায় কাজ করত না । ” { শরহে সুন্নাত । মিশকাতুল মাসাবীহ , হাদীস নং – ৪৯২০ } ।

উপরের হাদীস থেকে সহজেই অনুমেয় যে, ইসলামে ব্যক্তিগত চরিত্রের মূল্য কতটুকু । অন্যকে সৎ কাজের উপদেশ দিলাম, কিন্তু নিজে সে বিষয়ে ওয়াকিবহাল (অচেতন) থাকলাম তা ইসলামের চাওয়া না । ইসলাম সমগ্র মানবজাতিকে নিজের বিষয়ে সৎ গুনাবলী অর্জনের জন্য জোড় প্রদান করেছে ।

আমরা আরও দেখতে পেলাম, যারা অন্যদেরকে সৎ কাজের আদেশ করে নিজেদের ব্যাপারে ভুলে থাকতো তাদের অবস্থা পরকালীন জগতে কতটা শোচনীয় হবে । আগুনের কাঁচি কোনো হেলায় ফেলে দেয়া জিনিস নয় এটা আপনাদেরকে আবার বলার প্রয়োজন মনে করছিনা ।

তাহলে আজকের দারস (শিক্ষা/উপদেশ) এই পর্যন্তই । ভালো থাকুন ও ভালো রাখার চেষ্টা করুন আপনার পাশের ব্যক্তি, পিতামাতা, আত্নীয় স্বজন, বন্ধুবান্ধব ও পাড়া- প্রতিবেশীকে । আসসালামু আলাইকুম ।

2 thoughts on “আপনি যেই টিউন করছেন, সেই কাজটা নিজে পালন করছেন কি? আসুন কিছু হাদিস জানি এবিষয়ে ।

  • April 3, 2013 at 7:37 am
    Permalink

    ওয়া আলাইকুমুস সালাম ওয়া রাহমাতুল্লাহ।
    আল্লাহ তা’আলা আমাদেরকে সকল সৎগুণের অধিকারী হওয়ার এবং সব ধরণের খারাপ গুণ ও কাজ পরিত্যাগ করার এবং মানুষকে কল্যাণের পথে আহবান করা তাওফিক দান করুন। আমীন।

Leave a Reply