সহীহ্ বোখারী শরীফ (হাদিস ১১ থেকে ২০)

brr copy

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহ প্রিয় বন্ধুরা। মহান আল্লাহ তাআলার দরবারে শুকরিয়া যানাচ্ছি আমাকে এই পোষ্টটি করার তৌফিক দান করার জন্য। আমার পরিচয়, আমি মুসলিম। পবিত্র আল-কোরআন এবং সহীহ হাদীস ছাড়া অন্য কোন বাণী বা বাক্যে আমি বিশ্বাসী নই। দোয়া করি সকলেই যেন পবিত্র আল-কোরআন এবং সহীহ হাদীসের আলোকে নেক আমল করে যেতে পারেন মৃত্যুর আগ পর্যন্ত।

আসুন এখন মূল পোষ্টের আলোচনায় আসি………..

গত পোষ্টটি যারা পড়েন নি তারা এখান থেকে পড়ে নিন   সহীহ্ বোখারী শরীফ (হাদিস ০৪ থেকে ১০)

[বিঃ দ্রঃ কোন হাদিস এ যদি কোন প্রকার ভুল আপনারা পান কিনবা দেখেন। তাহলে সাথেসাথে আমাদের জানাবেন ………… অনুরোধ রইলো]

পরিচ্ছেদ ০৬ :- খাবার খাওয়ানো ইসলামী গুণ – হাদিস নং ১১

হাদিস -১১ :-

হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর (রাঃ) থেকে বর্ণিত, এক ব্যক্তি রাসুলুল্লাহ (সাঃ)কে জিজ্ঞাসা করল, ইসলামে কোন কাজটি উত্তম? তিনি বললেনঃ তুমি খাবার খাওয়াবে ও পরিচিত অপরিচিত সবাইকে সালাম করবে।

পরিচ্ছেদ ০৭ :- নিজের জন্য যা পছন্দনীয়, ভাইয়ের জন্যও তা পছন্দ করা ঈমানের অংশ – হাদিস নং ১২

হাদিস -১২ :-

হযরত আনাস (রাঃ) থেকে বর্ণিত, রাসুল (সাঃ) বলেছেন,তোমাদের কেউ পরিপুর্ন মুমিন হতে পারবেনা,যদি না সে তার মুসলিম ভাইয়ের জন্য তাই পছন্দ করবে, যা সে নিজের জন্য পছন্দ করে।

পরিচ্ছেদ ০৮ :- রাসূলুল্লাহ (সাঃ) কে ভালোবাসা ঈমানের অংশ – হাদিস নং ১৩ এবং ১৪

হাদিস -১৩ / ১৪ :-

হযরত আবু হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিত, রাসুল (সাঃ) বলেছেন, সেই মালিকের শপথ,যার হাতে আমার জীবন,তোমাদের কেউ মুমিন হতে পারবেনা,যতক্ষণ না আমি তার কাছে তার পিতা ও সন্তানের চেয়ে বেশী প্রিয় হব।

হযরত আনাস (রাঃ) থেকে বর্ণিত,রাসুলুল্লাহ (সাঃ) বলেছেন, তোমাদের কেউ মুমিন হতে পারবেনা,যতক্ষণ না আমি তার কাছে তার পিতা,সন্তান ও সব মানুষের চেয়ে বেশী প্রিয় হব।

পরিচ্ছেদ ০৯ :-ঈমানের স্বাদ – হাদিস নং ১৫

হাদিস -১৫ :-

হযরত আনাস (রাঃ) হতে বর্ণিত,নবী করীম (সাঃ) বলেছেন,৩টি গুন যার মধ্যে থাকবে সে ঈমানের স্বাদ পাবে।

১-আল্লাহ ও তার রাসুল (সাঃ) যার কাছে অন্য সব কিছুর থেকে প্রিয় হবে।

২-যে আল্লাহর উদ্দেশ্যে অন্য কোন লোককে ভালবাসবে।

৩-যে কুফুরিতে ফিরে যাওয়াতে অপছন্দ করবে যেমনিভাবে আগুনে নিক্ষিপ্ত হতে অপছন্দ করে।

পরিচ্ছেদ ১০ :-আনসারকে ভালোবাসা ঈমানের লক্ষণ – হাদিস নং ১৬

হাদিস -১৬ :-

হযরত আনাস (রাঃ) হতে বর্ণিত,নবী করীম (সাঃ) বলেছেন,ঈমানের চিহ্ন হল আনসারদেরকে(তৎকালীন মদিনার মুসলামান) ভালোবাসা এবং মুনাফেকির চিহ্ন হল আনসারদেরকে ঘৃণা করা।

পরিচ্ছেদ ১১ :-পরিচ্ছেদ – হাদিস নং ১৭

হাদিস -১৭ :-

বদর যুদ্ধে অংশগ্রহণকারী ও লায়লাতুল আকাবার একজন নকিব উবাদা ইবনে সামিত (রাঃ) হতে বর্ণিত,তিনি বলেন, রাসুলুল্লাহ সাঃ এর পাশে একজন সাহাবির উপস্থিতিতে তিনি বলেন,তোমরা আমার কাছে এই শপথ কর যে,

আল্লাহর সাথে কিছু শরিক করবেনা।
চুরি করবেনা।
যিনা করবেনা।
তোমাদের সন্তানদের হত্যা করবেনা।
কাউকে মিথ্যা অপবাদ দিবেনা।
নেক কাজে নাফরমানী করবেনা।

তোমাদের মধ্যে যে তা পুরন করবে,তার বিনিময় আল্লাহর কাছে।আর যে কেউ একটি ভংগ করলে আর দুনিয়াতে তার শাস্তি পেলে এটা তার জন্য কাফফারা।যদি কেউ একটি ভঙ্গ করে আর আল্লাহ তা গোপন রাখেন,তবে তা আল্লাহর ইচ্ছাদিন।তিনি যদি চান তাহলে তাকে ক্ষমা করে দিতে পারেন আর যদি চান তাকে শাস্তিও দিতে পারেন।উবাদা ইবনে সামিত বলেন,আমরা এই শর্তে তার হাতে শপথ করলাম।

পরিচ্ছেদ ১২ :-ফিতনা থেকে পলায়ন দীনের অংশ – হাদিস নং ১৮

হাদিস -১৮ :-

আবু সাইদ খুদরী রাঃ হতে বর্নিত,রাসুল সাঃ বলেছেন,সেদিন দূরে নয়,যেদিন মুসলিমের সম্পদ হবে কয়েকটা বকরি,যা নিয়ে সে পাহাড়ের চূড়ায় বা বৃষ্টিপাতের স্থানে চলে যাবে।ফিতনা থেকে সে তার দীন নিয়ে পালিয়ে যাবে

পরিচ্ছেদ ১৩ :-নবী করীম (সাঃ) এর বাণী ‘আমি তোমাদের তুলনায় আল্লাহ পাক সম্পর্কে অধিক জ্ঞানী’ – হাদিস নং ১৯

হাদিস -১৯ :-

আম্মাজান আয়েশা রাঃ হতে বর্নিত,তিনি বলেন,রাসুলুল্লাহ সাঃ সাহাবিদের যখন কোন আমলের নির্দেশ দিতেন,তখন তারা যতটুকু সামর্থ রাখতেন,ততটুকুরই নির্দেশ দিতেন।একবার তারা বলল,হে আল্লহর রাসুল! আমরা তো আপনার মত নই।আল্লাহ আপনার পুর্ববর্তি ও পরবর্তি সকল ত্রুটি মাফ করে দিয়েছেন।একথা শুনে তিনি রাগ করে বললেনঃতোমাদের চাইতে আল্লাহ্‌কে আমিই বেশী ভয় করি ও বেশী জানি।

পরিচ্ছেদ ১৪ :-কুফরীতে ফিরে যাওয়াকে আগুনে নিক্ষিপ্ত হবার ন্যায় অপছন্দ করা ঈমানের অংগ – হাদিস নং ২০

হাদিস -২০ :-

হযরত আনাস (রাঃ) হতে বর্ণিত,নবী করীম (সাঃ) বলেছেন,৩টি গুন যার মধ্যে থাকবে সে ঈমানের স্বাদ পাবে।

১-আল্লাহ ও তার রাসুল (সাঃ) যার কাছে অন্য সব কিছুর থেকে প্রিয় হবে।

২-যে আল্লাহর উদ্দেশ্যে অন্য কোন লোককে ভালবাসবে।

৩-যাকে আল্লাহ কুফুরি থেকে রক্ষা করার পর পুনরায় কুফুরিতে ফিরে যাওয়াতে অপছন্দ করবে যেমনিভাবে আগুনে নিক্ষিপ্ত হতে অপছন্দ করে।

আজ এই পর্যন্ত ই । ধন্যবাদ সকলকে । আল্লাহ হাফেজ

নবাগত রাহী

"ইসলামিকএমবিট (ডট) কম" একটি উন্মুক্ত ইসলামিক ব্লগিং প্লাটর্ফম। এখানে সকলেই নিজ নিজ ইসলামিক জ্ঞান নিয়ে আলোচনা করতে পারেন, তবে এখানে বিতর্কিত বিষয় গুলো allow করা হয় না। আমি এই ব্লগ সাইটটির সকল টেকনিক্যাল বিষয় গুলো দেখাশুনা করি। আপনাদের যে কোন প্রকার সাহায্য, জিজ্ঞাসা, মতামত থাকলে আমাকে মেইল করতে পারেন contact@islamicambit.com

Leave a Reply