হাদীস (পর্ব-২২)

পরম করুনাময় আল্লাহ্ এর নামে শুরু করলাম

 

আসসালামু আলাইকুম, কেমন আছেন সবাই? আশা করি ভালই আছেন, আমি ও আমরা আপনাদের দোয়ায় এবং আল্লাহ্র অশেষ রহমতে অনেক ভাল আছি।বেশি হাদীস দেই না, কারন আমার মত অনেক লোক আছে, যারা বেশি লেখা দেখলে সেটা পড়তে চায় না, তাই অল্প কয়েকটা হাদীস দিলাম, যারা যত ব্যস্তই থাকুক এই অল্প কয়টি হাদীস পড়ে নিতে পারবে, এবং অল্প হবার কারনে মনে রাখতে পারবে আবার তা আমল করারও চেষ্টা করবে।

 

 

পর্ব এক

পর্ব ০২

পর্ব ০৩

পর্ব ০৪

পর্ব ০৫

পর্ব ০৬

পর্ব ০৭

পর্ব ০৮

পর্ব ০৯

পর্ব ১০

পর্ব-১১

পর্ব-১২

পর্ব-১৩

পর্ব-১৪

পর্ব ১৫

পর্ব ১৬

পর্ব-১৭

পর্ব-১৮

পর্ব-১৯

পর্ব-২০

পর্ব-২১

২১। আওরাত যখন ঘর থেকে বের হয় তখন শয়তান তার সাথে হয়ে যায়।

২২। হুযুর (সঃ) বলেন, জাহান্নামে আমি আওরাতকে বেশি দেখেছি কারন তারা স্বামীর নাশোকরী বেশি করে। সারা জিন্দেগী স্বামী ভাল ব্যবহার করে তবে যদি স্বামীর না পছন্দনীয় কোন কিছু দেখে মহিলারা বলেন আমি সারা জীবন আপনার কাছ থেকে কোন ভাল কিছু পাইনি।

২৩। মুমীন আওরাত যখন গর্ভবতী হন তখন তার জন্য রোজাদার রাতে তাহাজ্জুদ পড়ার, ইহরাম বাধনেওয়ালা এবং মুজাহেদ যারা আল্লাহর রাস্তায় চলে তাদের সওয়াব তার জন্য লিখা হবে। যতদিন পর্যন্ত বাচ্চা পয়দা না হয়। প্রথমে বাচ্চাকে যে দুখ পান করানো হয় প্রতি ফোটার বিনিময়ে ইনসান জীবিত করার সওয়াব লেখা হয়। বাচ্চা প্রসবকালীন কষ্টের বিনিময়ে এত নেকী দেওয়া হবে কোন মানুষ তা জানবে না।

২৪। হুযুর (সঃ) বলেন, স্বামী চাচ্ছেনা কিন্তু স্ত্রী চাচ্ছেন গর্ভবতী হোক, পরবর্তীতে স্বামী স্ত্রী উভয়ে রাজি হয়ে যায় এর সওয়াব এত বেশি হবে যে আল্লাহ ছাড়া আর কেউ জানবে না।

২৫। বাচ্ছা হবার পর যদি মায়ের বুকে দুধ বের না হয় এবং অন্য কারও দুধ না পান করায় তবে পরে দুধ আসার পর প্রতি ফোটায় একটি নেকী লেখা হবে। বাচ্চার অসুবিধার কারনে মা যদি ঘুমাতে না পারে প্রতি রাতের জন্য ৭০ জন গোলাম আযাদের নেকী লেখা হয়।

ভাল লাগলে কমেন্টে জানাতে ভুলবে না…

ভুলে ভরা জীবনে ভুল হওয়াটা অসম্ভব কিছু নয়,যদি আমার লেখার মাঝে কোন ভুলত্রুটি থাকে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন। ধন্যবাদ সবাই ভাল থাকবেন।

মোঃ আবুল বাশার

আমি একজন ছাত্র,আমি লেখাপড়ার মাঝে মাঝে একটা ছোট্ট পত্রিকা অফিসে কম্পিউটার অপরেটর হিসাবে কাজ করে,নিজের হাত খরচ চালানোর চেষ্টা করি, আমি চাই ডিজিটাল বাংলাদেশ হলে এবং তাতে সেই সময়ের সাথে যেন আমিও কিছু শিখতে পারি। আপনারা সকলে ৫ ওয়াক্ত নামাজ পরার চেষ্টা করুন এবং অন্যকেও ৫ওয়াক্ত নামাজ পরার পরামর্শ দিন। আমার পোষ্ট গুলো গুরে দেখার জন্য ধন্যবাদ, ভাল লাগেলে কমেন্ট করুন। মানুষ মাত্রই ভুল হতে পারে,ভুল ত্রুটি,হাসি,কান্না,দু:খ,সুখ,এসব নিয়েই মানুষের জীবন। ভুলে ভড়া জীবনে ভুল হওয়াটা অসম্ভব কিছু নয়,ভুল ত্রুটি ক্ষমার দৃর্ষ্টিতে দেখবেন। আবার আসবেন।

Leave a Reply